web analytics

মহাভারত > কৃষ্ণকাহিনী মহাভারত

মহাভারত লিপিবদ্ধ করার ব্যাপারে একটি কাহিনী প্রচলিত আছে। মহাভারত বেদব্যাস স্বহস্তে লেখেননি—শিবপুত্ৰ গণেশ লিপিবদ্ধ করেছিলেন। ব্যাসদেব গণেশকে প্রস্তাব দিলেন, তিনি মুখে মুখে মহাভারতের কাহিনী বলে যাবেন এবং শিবপুত্র সেই কাহিনী লিপিবদ্ধ করবেন। তাকে বসিয়ে রাখা চলবে না, বলা বন্ধ হলেই তিনি লেখা বন্ধ করবেন এই শর্তে গণেশ রাজী হলেন। গণেশ খুব দ্রুত লিখতে পারতেন। এতবড় একটি গ্রন্থ মুখে মুখে বলাও খুব সহজ কাজ নয়। ব্যাসদেব গণেশের প্রস্তাবে রাজী হলেন একটি শর্তে—প্রতিটি শ্লোকের অর্থ বুঝে তবেই গণেশ লিখবেন। অসুবিধা দেখলেই ব্যাসদেব একটি করে উদ্ভট শ্লোক বলতেন যার অর্থভেদ করতে গণেশের যথেষ্ট সময় লাগত। এইভাবে অৰ্জুনের পৌত্র পরীক্ষিতের রাজত্বকালের প্রথম তিন বছরে ‘মহাভারত’ রচিত তথা লিপিবদ্ধ হয়েছিল।

Read online or Download this book

© ভারতীয় কপিরাইট আইন, ১৯৫৭ অনুসারে সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

এই বইটির স্বত্বাধিকার লেখক বা লেখক নির্ধারিত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের, অর্থাৎ বইটি পাবলিক ডোমেইনের আওতাভূক্ত নয়৷ কেননা, যে সকল বইয়ের উৎস দেশ ভারত এবং ভারতীয় কপিরাইট আইন, ১৯৫৭ অনুসারে, লেখকের মৃত্যুর ষাট বছর পর স্বনামে ও জীবদ্দশায় প্রকাশিত অথবা বেনামে বা ছদ্মনামে ও মরণোত্তর প্রকাশিত রচনা বা গ্রন্থসমূহ প্রথম প্রকাশের ষাট বছর পর পঞ্জিকাবর্ষের সূচনা থেকে কপিরাইট মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায়৷ অর্থাৎ, ১ জানুয়ারি, 2019 সাল হতে 1959 সালের পূর্বে প্রকাশিত (বা পূর্বে মৃত লেখকের) সকল রচনা পাবলিক ডোমেইনের আওতাভুক্ত হবে। এবং 1959 সালের পরে প্রকাশিত বা মৃত লেখকের বইসমূহ পাবলিক ডোমেইনের আওতাভূক্ত হবে না৷

আইনি সতর্কতা

প্রকাশক এবং স্বত্বাধিকারীর লিখিত অনুমতি ছাড়া এই বইয়ের কোনও অংশেরই কোনওরূপ পুনরুৎপাদন বা প্রতিলিপি করা যাবে না, কোন যান্ত্রিক উপায়ের (গ্রাফিক, ইলেকট্রনিক বা অন্য কোনও মাধ্যম, যেমন ফটোকপি, টেপ বা পুনরুদ্ধারের সুযোগ সম্বলিত তথ্য-সঞ্চয় করে রাখার কোনও পদ্ধতি) মাধ্যমে প্রতিলিপি করা যাবে না বা কোন ডিস্ক, টেপ, পারফোরেটেড মিডিয়া বা কোনও তথ্য সংরক্ষণের যান্ত্রিক পদ্ধতিতে পুনরুৎপাদন করা যাবে না। এই শর্ত লঙ্ঘিত হলে উপযুক্ত আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে।

Leave a Reply

WhatsApp chat