web analytics

কথা সাহিত্য > উপন্যাস > বাদশা নামদার

বাদশা নামদার হুমায়ূন আহমেদের শেষজীবনে লেখা ঐতিহাসিক উপন্যাস। এই বইয়ে পাঠক খুঁজে পাবেন নন্দিত নরকে, শঙ্খনীল কারাগারে, আগুনের পরশমনি, কোথাও কেউ নেই, বহুব্রীহি ইত্যাদি গ্রন্থের লেখক হুমায়ূন আহমেদকে। ভুরি ভুরি সন, স্থান, ব্যক্তিনামের আতঙ্ক ইতিহাসকে তিনি তাঁর কলমে এঁকেছেন উপভোগ্য কাহিনী বানিয়ে।
বাদশা নামদার হলেন মুঘল সম্রাট বাবরের পুত্র হুমায়ূন। পাঠ্য ইতিহাস আমাদের জানিয়েছে, বাবর পুত্র হুমায়ূন কিভাবে ভারতের সম্রাট হলেন। বাদশা নামদারে পাবেন আরও অনেক কিছু। বাদশা হুমায়ূন শুধু একজন সম্রাট, যুদ্ধবাজই ছিলেন না, তিনি একজন কবিও ছিলেন, ছিলেন একজন প্রেমিকও। পত্নী হামিদা বানুর প্রতি ছিল তার অগাধ ভালোবাসা। হামিদা বানুও সম্রাটকে কম ভালোবাসেননি। সুসময়ে তাদের যে ভালোবাসা আমরা দেখেছি, শের শাহ কর্তৃক বিতাড়িত হয়ে মরুচারী, দরিদ্র, জীবনযুদ্ধে ক্লান্ত অবস্থায়ও তাদের সেই ভালোবাসাই আমরা দেখেছি। পরবর্তীতে সুদিন ফিরে এলেও হুমায়ূন হামিদা বানুকে ভুলে যাননি।
সম্রাট হুমায়ূনের জীবনে তার ভাই কামরান, তার সেনাপতি বৈরাম খানের ভূমিকা অতুলনীয়; বাদশা নামদারে সেই চিত্র আঁকতে ভুল করেননি ঔপন্যাসিক হুমায়ূন আহমেদ। আবার সুপাঠ্য করে এঁকেছেন ধূর্ত শেরখানের চরিত্র, যিনি দিল্লী দখলে করে শেরশাহ নামধারণ করেছিলেন।
হুমায়ূন পুত্র আকবর সত্যিই কি গ্রেট ছিলেন? এই প্রশ্নের খানিক মীমাংসাও পাবেন বাদশা নামদারে। আমাদের দূর্ভাগ্য, হুমায়ূন আহমেদ বেঁচে থাকলে হয়তো আকবরের কাহিনীও আমরা একটি সুখপাঠ্য উপন্যাস হিসাবে পেতে পারতাম।
Read online or Download this book

© বাংলাদেশ কপিরাইট আইন, ২০০০ অনুসারে সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

এই বইটির স্বত্বাধিকার লেখক বা লেখক নির্ধারিত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের, অর্থাৎ বইটি পাবলিক ডোমেইনের আওতাভূক্ত নয়৷ কেননা, যে সকল বইয়ের উৎস দেশ বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ কপিরাইট আইন, ২০০০ অনুসারে, লেখকের মৃত্যুর ষাট বছর পর স্বনামে ও জীবদ্দশায় প্রকাশিত অথবা বেনামে বা ছদ্মনামে ও মরণোত্তর প্রকাশিত রচনা বা গ্রন্থসমূহ প্রথম প্রকাশের ষাট বছর পর পঞ্জিকাবর্ষের সূচনা থেকে কপিরাইট মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায়৷ অর্থাৎ, ১ জানুয়ারি, 2019 সাল হতে 1959 সালের পূর্বে প্রকাশিত (বা পূর্বে মৃত লেখকের) সকল রচনা পাবলিক ডোমেইনের আওতাভুক্ত হবে। এবং 1959 সালের পরে প্রকাশিত বা মৃত লেখকের বইসমূহ পাবলিক ডোমেইনের আওতাভূক্ত হবে না৷

আইনি সতর্কতা

প্রকাশক এবং স্বত্বাধিকারীর লিখিত অনুমতি ছাড়া এই বইয়ের কোনও অংশেরই কোনওরূপ পুনরুৎপাদন বা প্রতিলিপি করা যাবে না, কোন যান্ত্রিক উপায়ের (গ্রাফিক, ইলেকট্রনিক বা অন্য কোনও মাধ্যম, যেমন ফটোকপি, টেপ বা পুনরুদ্ধারের সুযোগ সম্বলিত তথ্য-সঞ্চয় করে রাখার কোনও পদ্ধতি) মাধ্যমে প্রতিলিপি করা যাবে না বা কোন ডিস্ক, টেপ, পারফোরেটেড মিডিয়া বা কোনও তথ্য সংরক্ষণের যান্ত্রিক পদ্ধতিতে পুনরুৎপাদন করা যাবে না। এই শর্ত লঙ্ঘিত হলে উপযুক্ত আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে।

Leave a Reply

WhatsApp chat