বিভাগ: প্রবন্ধ
বাংলা
লেখক
ইপাব, মুবি, পিডিএফ, টেক্সট
‘দালাল’ ‘দালাল’ শুনতে শুনতে ভাবতে লাগলাম মানুষ জানুক না এক ‘দালাল’ এর কথা, যে দালাল টাকার জন্য কোন ব্যাক্তি বা গোষ্ঠি বা দলের নয়, দালালি করে গেল একটা মতাদর্শ, একটা দর্শন, একটা রাজনীতির। ‘পরিবর্তনে’র নামে দেশটাকে বিক্রি করতে উদ্যত কতগুলো জগত শেঠ, উর্মিচাদ, মিরজাফররা। সেখান থেকে টাকা কামাতে উদ্যত কতগুলো বুদ্ধিজীবী নামক বৃহন্নলা, তারা নাটক, গান, চলচ্চিত্র নিয়ে বাজারে নেমেছে। সৃজনের নামে লাম্পট্য চালিয়ে যাচ্ছে, তার লাম্পট্য গ্রামাঞ্চলে জমিদার নামক মানুষখেকোগুলো সংবিধান সিদ্ধ হয়ে উঠে পড়ে লেগেছে কৃষক উচ্ছেদে। খুনি পুলিশ অফিসারগুলো জোট বেঁধেছে…প্রশ্ন হলো একটাইঃ দালাল হবে, নাকি মিরজাফর হবে। উচ্ছেদ হওয়া কৃষকের হয়ে দালালি করবে নাকি জোতদারদের খতম না করে, খুনি পুলিশ কর্মকর্তাদের শেষ না করে হার্মাদ নামে সি পি এক বিরোধিতার নামে কৃষক উচ্ছেদে মদতকারী, পুঁজিবাদীকে উদ্ধার পাওয়ার রাস্তা তৈরি করবে মাওবাদের নামে, লাল না গেরুয়া অথবা সবুজ? সুমন কবীর নিজের স্বপক্ষে গান গেয়ে বেইমানি মানে জোতদারদের ফিরে আসার যুক্তি দিয়েছেন, সোজা বক্তব্যঃ Wind is knocking at the window-pan! I change my name, my faith and religion. তার দক্ষিণী জানালাতে বাতাসের গুঞ্জন, পরিবর্তন, পরিবর্ধন, তাই সে দক্ষিণী হাওয়াতে নাম, বিশ্বাস, ধর্ম পরিবর্তন করে নিল, জীর্ণ পাতার মতো ঝরে গেল। যুক্তিটাও আছে ‘চোরের যুক্তি’, সেটা কি? তুমিও তো পালটে গেছ! যা উদ্ধৃতি দিতে, যা বলতে, যা করতে, তুমিও সেটা নেই! মানে আমার বিশ্বাসে, মস্তিস্ক জগত সৎ থাকাটা তোমার উপর নির্ভরশীল! তার কাছে মনে হয়েছে চোরের পরিবর্তে খুনিরা শ্রেয়! চোরদের মদত দেওয়ার চেয়ে পালটে গিয়ে খুনিদের শক্তিবৃদ্ধি করে ভেতরের প্রবৃত্তি পশুর রক্ত পিপাসাটা মেটানো…তারই নাম ‘পরিবর্তন’।
Read online or Download this book

যে সকল বইয়ের উৎসস্থল বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ কপিরাইট আইন, ২০০০ অনুসারে, লেখকের মৃত্যুর ষাট বছর পর স্বনামে ও জীবদ্দশায় প্রকাশিত অথবা বেনামে বা ছদ্মনামে ও মরণোত্তর প্রকাশিত রচনা বা গ্রন্থসমূহ প্রথম প্রকাশের ষাট বছর পর পঞ্জিকাবর্ষের সূচনা থেকে কপিরাইট মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায়৷ অর্থাৎ, ২০১৮ সালে, ১ জানুয়ারি ১৯৫৮ সালের পূর্বে প্রকাশিত (বা পূর্বে মৃত লেখকের) সকল রচনা পাবলিক ডোমেইনের আওতাভুক্ত হবে।

রচনাবলী
আপনার জন্য প্রস্তাবিত বইসমূহ