web analytics

প্রবন্ধ > একজন দালালের স্বীকারোক্তি

‘দালাল’ ‘দালাল’ শুনতে শুনতে ভাবতে লাগলাম মানুষ জানুক না এক ‘দালাল’ এর কথা, যে দালাল টাকার জন্য কোন ব্যাক্তি বা গোষ্ঠি বা দলের নয়, দালালি করে গেল একটা মতাদর্শ, একটা দর্শন, একটা রাজনীতির। ‘পরিবর্তনে’র নামে দেশটাকে বিক্রি করতে উদ্যত কতগুলো জগত শেঠ, উর্মিচাদ, মিরজাফররা। সেখান থেকে টাকা কামাতে উদ্যত কতগুলো বুদ্ধিজীবী নামক বৃহন্নলা, তারা নাটক, গান, চলচ্চিত্র নিয়ে বাজারে নেমেছে। সৃজনের নামে লাম্পট্য চালিয়ে যাচ্ছে, তার লাম্পট্য গ্রামাঞ্চলে জমিদার নামক মানুষখেকোগুলো সংবিধান সিদ্ধ হয়ে উঠে পড়ে লেগেছে কৃষক উচ্ছেদে। খুনি পুলিশ অফিসারগুলো জোট বেঁধেছে…প্রশ্ন হলো একটাইঃ দালাল হবে, নাকি মিরজাফর হবে। উচ্ছেদ হওয়া কৃষকের হয়ে দালালি করবে নাকি জোতদারদের খতম না করে, খুনি পুলিশ কর্মকর্তাদের শেষ না করে হার্মাদ নামে সি পি এক বিরোধিতার নামে কৃষক উচ্ছেদে মদতকারী, পুঁজিবাদীকে উদ্ধার পাওয়ার রাস্তা তৈরি করবে মাওবাদের নামে, লাল না গেরুয়া অথবা সবুজ? সুমন কবীর নিজের স্বপক্ষে গান গেয়ে বেইমানি মানে জোতদারদের ফিরে আসার যুক্তি দিয়েছেন, সোজা বক্তব্যঃ Wind is knocking at the window-pan! I change my name, my faith and religion. তার দক্ষিণী জানালাতে বাতাসের গুঞ্জন, পরিবর্তন, পরিবর্ধন, তাই সে দক্ষিণী হাওয়াতে নাম, বিশ্বাস, ধর্ম পরিবর্তন করে নিল, জীর্ণ পাতার মতো ঝরে গেল। যুক্তিটাও আছে ‘চোরের যুক্তি’, সেটা কি? তুমিও তো পালটে গেছ! যা উদ্ধৃতি দিতে, যা বলতে, যা করতে, তুমিও সেটা নেই! মানে আমার বিশ্বাসে, মস্তিস্ক জগত সৎ থাকাটা তোমার উপর নির্ভরশীল! তার কাছে মনে হয়েছে চোরের পরিবর্তে খুনিরা শ্রেয়! চোরদের মদত দেওয়ার চেয়ে পালটে গিয়ে খুনিদের শক্তিবৃদ্ধি করে ভেতরের প্রবৃত্তি পশুর রক্ত পিপাসাটা মেটানো…তারই নাম ‘পরিবর্তন’।
Read online or Download this book

© বাংলাদেশ কপিরাইট আইন, ২০০০ অনুসারে সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

এই বইটির স্বত্বাধিকার লেখক বা লেখক নির্ধারিত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের, অর্থাৎ বইটি পাবলিক ডোমেইনের আওতাভূক্ত নয়৷ কেননা, যে সকল বইয়ের উৎস দেশ বাংলাদেশ এবং বাংলাদেশ কপিরাইট আইন, ২০০০ অনুসারে, লেখকের মৃত্যুর ষাট বছর পর স্বনামে ও জীবদ্দশায় প্রকাশিত অথবা বেনামে বা ছদ্মনামে ও মরণোত্তর প্রকাশিত রচনা বা গ্রন্থসমূহ প্রথম প্রকাশের ষাট বছর পর পঞ্জিকাবর্ষের সূচনা থেকে কপিরাইট মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায়৷ অর্থাৎ, ১ জানুয়ারি, 2019 সাল হতে 1959 সালের পূর্বে প্রকাশিত (বা পূর্বে মৃত লেখকের) সকল রচনা পাবলিক ডোমেইনের আওতাভুক্ত হবে। এবং 1959 সালের পরে প্রকাশিত বা মৃত লেখকের বইসমূহ পাবলিক ডোমেইনের আওতাভূক্ত হবে না৷

আইনি সতর্কতা

প্রকাশক এবং স্বত্বাধিকারীর লিখিত অনুমতি ছাড়া এই বইয়ের কোনও অংশেরই কোনওরূপ পুনরুৎপাদন বা প্রতিলিপি করা যাবে না, কোন যান্ত্রিক উপায়ের (গ্রাফিক, ইলেকট্রনিক বা অন্য কোনও মাধ্যম, যেমন ফটোকপি, টেপ বা পুনরুদ্ধারের সুযোগ সম্বলিত তথ্য-সঞ্চয় করে রাখার কোনও পদ্ধতি) মাধ্যমে প্রতিলিপি করা যাবে না বা কোন ডিস্ক, টেপ, পারফোরেটেড মিডিয়া বা কোনও তথ্য সংরক্ষণের যান্ত্রিক পদ্ধতিতে পুনরুৎপাদন করা যাবে না। এই শর্ত লঙ্ঘিত হলে উপযুক্ত আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WhatsApp chat