web analytics

অভিযান > মেঘদূতের মর্তে আগমন

গল্প সংক্ষেপ: কমল, বিনয়, বিমল ও কুমার। বিমল আর কুমারকে তো তোমরা চেনই। সেই যে ‘যকের ধন’ এ তোমরা পড়েছিলে! যারা খাসিয়া পাহাড়ে গিয়েছিল যকের ধনের খোঁজে! হুমমম… তারা এবার আর একটি অভিযানের সঙ্গী হয়েছে।
হঠাৎ-ই বিলাশপুর গ্রামে কেমন সব অলৌকিক কাণ্ডকারখানা ঘটে যাচ্ছে। গ্রামের মানুষগুলো দিনের পর দিন উধাও হয়ে যাচ্ছে কিন্তু তাদের কোনও খোঁজ মিলছে না। এমনকি লাশ পর্যন্ত নয়। সেই দিনই বিলাশপুর গ্রামের প্রায় ১৫০ বছরের পুরনো বটগাছের নিচে পূজা শেষ করে গ্রাম বাসীরা নিজ নিজ ঘরে ফিরেছে কিন্তু সকালে উঠে দেখে একি! একটা প্রকাণ্ড বটগাছটা একেবারে হাপিস! শুধু সেখানে হয়ে আছে বিরাট গর্ত। গাছে যে বানর গুলো থাকত তারা পর্যন্ত নেই। সেই দিন সন্ধ্যে বেলা জাহাজ ঘাট থেকে আস্ত একটা জাহাজ উধাও হয়ে গেল। এমনি সব অলৌকিক কাণ্ডকারখানা ঘটছে বিলাশপুর গ্রামে।
বিমলবাবুর বয়স চল্লিশের কাছাকাছি কিন্তু তার মন সব বয়সের মানুষেদের সাথে মেশার জন্য উপযোগি। তাইতে তার কমলের সাথে বন্ধুত্ব হয়ে যায়। বিমলবাবু স্বভাবে একজন অনুসন্ধানকারী। বিশেষ করে তার মহাকাশ ভাল লাগে। বিলাশপুরে যা কিছু ঘটছে তা তিনি একেবারেই ভূতুরে ব্যাপার বলে মেনে নিতে রাজি নন। তাই তিনি কমলকে নিয়ে সেখানে উপস্থিত হলে আর সেখানে গিয়ে দেখা হল বিমল আর কুমারের সাথে। তারা চারজনে অনেক সুলুক সন্ধানের পর তারা নিশ্চিত হলো যে, এই ধরনের কাণ্ডকারখানা ঘটাচ্ছে অন্য গ্রহ থেকে আনা বুদ্ধিমান প্রাণী। এমনই একদিন সন্ধ্যায় তাদের অনুসন্ধানের সময় একটি ঝড়ো হাওয়া তাদের উড়িয়ে নিয়ে গেল সোজা মহাকাশে। তারপর তাদের কি হলো…?
Read online or Download this book

© ভারতীয় কপিরাইট আইন, ১৯৫৭ অনুসারে সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত

এই বইটির স্বত্বাধিকার লেখক বা লেখক নির্ধারিত ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের, অর্থাৎ বইটি পাবলিক ডোমেইনের আওতাভূক্ত নয়৷ কেননা, যে সকল বইয়ের উৎস দেশ ভারত এবং ভারতীয় কপিরাইট আইন, ১৯৫৭ অনুসারে, লেখকের মৃত্যুর ষাট বছর পর স্বনামে ও জীবদ্দশায় প্রকাশিত অথবা বেনামে বা ছদ্মনামে ও মরণোত্তর প্রকাশিত রচনা বা গ্রন্থসমূহ প্রথম প্রকাশের ষাট বছর পর পঞ্জিকাবর্ষের সূচনা থেকে কপিরাইট মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে যায়৷ অর্থাৎ, ১ জানুয়ারি, 2019 সাল হতে 1959 সালের পূর্বে প্রকাশিত (বা পূর্বে মৃত লেখকের) সকল রচনা পাবলিক ডোমেইনের আওতাভুক্ত হবে। এবং 1959 সালের পরে প্রকাশিত বা মৃত লেখকের বইসমূহ পাবলিক ডোমেইনের আওতাভূক্ত হবে না৷

আইনি সতর্কতা

প্রকাশক এবং স্বত্বাধিকারীর লিখিত অনুমতি ছাড়া এই বইয়ের কোনও অংশেরই কোনওরূপ পুনরুৎপাদন বা প্রতিলিপি করা যাবে না, কোন যান্ত্রিক উপায়ের (গ্রাফিক, ইলেকট্রনিক বা অন্য কোনও মাধ্যম, যেমন ফটোকপি, টেপ বা পুনরুদ্ধারের সুযোগ সম্বলিত তথ্য-সঞ্চয় করে রাখার কোনও পদ্ধতি) মাধ্যমে প্রতিলিপি করা যাবে না বা কোন ডিস্ক, টেপ, পারফোরেটেড মিডিয়া বা কোনও তথ্য সংরক্ষণের যান্ত্রিক পদ্ধতিতে পুনরুৎপাদন করা যাবে না। এই শর্ত লঙ্ঘিত হলে উপযুক্ত আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে।

Leave a Reply

WhatsApp chat